ঢাকা,বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

রূপালী ব্যাংকের ১৫০ দিনের বিশেষ কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা

সকল ব্যবসায়িক সূচকে ব্যাংকের অগ্রগতি অব্যাহত রাখা ও ব্যবসায়িক লক্ষ্যমাত্রা-২০২৩ অর্জনের লক্ষ্যে ১৫০ দিনের বিশেষ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব রূপালী ব্যাংক লিমিটেড।

বৃহস্পতিবার (০২.০২.২০২৩) দিলকুশা¯’ ব্যাংকটির প্রধান কার্যালয়ের সামনে থেকে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এই বিশেষ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী ছানাউল হক এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর।

১৫০ দিনের বিশেষ কর্মসূচি সফল করতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্দেশ দেন ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর। এই কর্মসূচির মাধ্যমে রেমিট্যান্স আহরণ, আমানতের প্রবৃদ্ধি, আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য, খেলাপী ঋণ আদায়, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সূচকে রূপালী ব্যাংককে একটি টেকসই অব¯’ানে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ম্যানেজিং ডিরেক্টর এন্ড সিইও মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর।

এ সময় তিনি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জানান, এই কর্মসূচি বাস্তবায়িত হলে ব্যাংকের সর্বস্তরে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। যে সমস্ত কর্মকর্তাগণ সফলভাবে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবেন তাদেরকে পুরস্কৃত করা হবে বলেও ঘোষণা দেন। ইতোমধ্যে এমডি হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর ঘোষিত ১০০ দিনের কর্মসূচি সফলভাবে সম্পন্ন করায় কর্মকর্তা-কর্মচারীদেও ধন্যবাদ জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সার্বিক নির্দেশনা অনুযায়ী রূপালী ব্যাংককে একটি স্মার্ট ব্যাংক হিসেবে গড়ে তোলা হবে। সার্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় খেলাপী ঋণ আাদায়, সিএমএসএমই ও কৃষি ঋণ বিতরণ, রেমিট্যান্স ও আমদানি-রপ্তানি প্রবাহ বৃদ্ধি এবং গ্রামীণ

অর্থনীতি ও অন্তর্ভূক্তিমূলক অর্থনৈতিক কার্যক্রমে আরও সমৃদ্ধ হয়ে আধুনিক, যুগোপযোগী ও কার্যকর ব্যাংকিং প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে উন্নত গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করে অত্র ব্যাংকের অর্থনৈতিক ভীত মজবুত করাই আমার লক্ষ্য’।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী ছানাউল হক বলেন, রূপালী ব্যাংক দেশের একটি মডেল আর্থিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে। এ ধরনের কর্মপরিকল্পনা প্রতিষ্ঠানের জন্য ইতিবাচক ফলাফল বয়ে নিয়ে আসবে বলে চেয়ারম্যান কাজী ছানাউল হক আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এই কর্মসূচি সফল করতে যে ধরনের সততা ও দক্ষতার প্রয়োজন তার সবটুকুই ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের রয়েছে বলে মনে করেন তিনি। এ বিষয়ে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পক্ষ থেকে সর্বাত্নক সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন চেয়ারম্যান কাজী ছানাউল হক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের ডিএমডি শওকত আলী খান, তাহমিনা আক্তার ও হাসান তানভীর।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে প্রধান কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক ও উপ-মহাব্যবস্থাপক এবং ভার্চ্যুয়ালি সকল বিভাগীয় অফিস ও জোনাল অফিসের নির্বাহীগণ এবং সকল শাখার ব্যবস্থাপকগণসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন।

পাঠকের মতামত: