ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

৩৫ শতাংশ তামা উত্তোলন বেড়েছে পেরুতে

গত বছরের একই সময়ের তুলনায় পেরুতে গত মে মাসে তামা উত্তোলন ৩৫ শতাংশ বেড়েছে। দেশটির জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় গতকাল এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়। পেরু বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ তামা উত্তোলক। দেশটি এ অবস্থান ধরে রাখতে জোর প্রয়াস চালাচ্ছে। এ ধারাবাহিকতায় মে মাসে উত্তোলন বেড়েছে। জুন ও জুলাইসহ বছরের বাকি সময়ে উত্তোলনে ঊর্ধ্বমুখী ধারা ধরে রাখতে সচেষ্ট দেশটির খাতসংশ্লিষ্টরা। খবর মাইনিং ডটকম।

রাজনৈতিক অস্থিরতায় লম্বা সময় ধরেই চ্যালেঞ্জের মুখে রয়েছে চিলির তামা উত্তোলন খাত। শ্রমিক আন্দোলনের কারণে অনেক খনির কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে। এসব প্রতিবন্ধকতায় উত্তোলন নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে প্রধান খনিগুলো। এর মধ্যে বিনিয়োগ স্বল্পতা দেশটির তামা খাতকে আরো কঠিন পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে দেশটির সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে।

এ বিষয়ে জ্বালানি ও খনিজ মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, মে মাসে সব মিলিয়ে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৭৮১ টন তামা উত্তোলন করা হয়েছে। এর মধ্যে কারো ভার্দে, আন্তামিনা ও দক্ষিণাঞ্চলীয় খনিগুলো সবচেয়ে বেশি তামা উত্তোলন করতে সক্ষম হয়েছে।

বিশ্লেষকরা জানান, প্রতিবেশী দেশ কঙ্গো সম্প্রতি তামা খাতে বেশ ভালো প্রবৃদ্ধি আনতে সক্ষম হয়েছে। পেরুতে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার সুযোগে দেশটি বিশ্ববাজারে নিজেদের অবস্থান আরো পোক্ত করেছে। এ পরিস্থিতিতে দেশটি পেরুকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় শীর্ষে উঠে আসতে পারে বলে ধারণা। তবে পেরুর জ্বালানি মন্ত্রণালয় জানায়, দ্বিতীয় শীর্ষস্থান ধরে রাখতে জোর প্রচেষ্টা চলছে। কয়েক বছরের মধ্যে পেরু তামা উত্তোলনে আরো এক ধাপ এগিয়ে যাবে বলেও প্রত্যাশা ব্যক্ত করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: