ঢাকা,সোমবার, ১০ জুন ২০২৪

আড়াই বছরের সর্বোচ্চে ভারতীয় চালের দাম

আরও এক ধাপ বেড়েছে ভারতীয় চালের রফতানি মূল্য। প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর চেয়ে বেশি চাহিদা থাকায় আড়াই বছরের সর্বোচ্চে অবস্থান করছে বাজারদর। তবে নিম্নমুখী চাহিদা ও দুর্বল মুদ্রার প্রভাবে কমেছে থাই চালের দাম। খবর বিজনেস রেকর্ডার।

চলতি সপ্তাহে ভারতীয় ৫ শতাংশ ভাঙা সেদ্ধ চালের রফতানি মূল্য ৩৯৫-৪০২ ডলারে উন্নীত হয়েছে, যা আগের সপ্তাহে ছিল ৩৯৩-৩৯৮ ডলার। একটি গ্লোবাল ট্রেড হাউজের মুম্বাইভিত্তিক এক ডিলার বলেন, ‘ভারতীয় চালের দাম ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে। এর পরও ক্রেতারা মার্চ ও এপ্রিলে সরবরাহের জন্য বিপুল পরিমাণে চাল কিনেছেন।’

এদিকে ৫ শতাংশ ভাঙা থাই চালের রফতানি মূল্য দাঁড়িয়েছে ৪৮০-৪৯০ ডলারে, যা গত সপ্তাহে রফতানি হয়েছিল ৪৯৫ ডলার মূল্যে। মুদ্রার দুর্বল বিনিময় হারের কারণে দাম কমছে। কিন্তু সে অনুযায়ী চাহিদা বাড়ছে না। কারণ দেশটির চাল এখনো ক্রেতাদের জন্য তুলনামূলক ব্যয়বহুল।

এ বিষয়ে ব্যাংককভিত্তিক ব্যবসায়ীরা বলছেন, মার্চের প্রথম দিকেই বাজারে নতুন চাল উঠবে। তখন দাম আরো কমতে পারে। বর্তমানে চাল রফতানির ক্ষেত্রে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় হচ্ছে। এ কারণে প্রতিযোগিতামূলক দাম হারিয়েছে থাই চাল।

ভিয়েতনামের ৫ শতাংশ ভাঙা চাল রফতানি হচ্ছে ৪৫৫-৪৬০ ডলারে, যা এক সপ্তাহ আগে রফতানি হয়েছিল ৪৪৫-৪৫০ ডলারে। অর্থাৎ দেশটির চালের দামও বেড়েছে। নতুন চুক্তির প্রস্তুতি হিসেবে রফতানিকারকরা কৃষকদের থেকে চাল ক্রয় শুরু করেছেন।

হো চি মিন সিটিভিত্তিক ব্যবসায়ীরা বলছেন, জানুয়ারিতে ভিয়েতনামের চাল রফতানি আগের মাসের তুলনায় ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ কমেছে। রফতানির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৫৯ হাজার ৩১০ টনে।

এনজে

পাঠকের মতামত: