ঢাকা,শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

ডিএসইর চার কর্মকর্তাকে সাসপেন্ড করলো ভারপ্রাপ্ত এমডি

বিতর্কের পিছু ছাড়ছেনা দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই)। সম্প্রতি কয়েকটি কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন সংক্রান্ত ভুল তথ্য  ডিএসইর ওয়েবসাইটে  প্রকাশ করা হয়েছে। তবে পরে বিষয়টি সংশোধন করা হয়েছে। এর পেছনে কারসাজি চক্রের ইন্ধন থাকার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও সম্প্রতি একটি কোম্পানি নিয়ম লঙ্ঘন করে বোনাস শেয়ার ঘোষণা করলেও ডিএসইর মার্কেট অপারেশন বিভাগ তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

এই বিষয়টি নিয়ে সর্বশেষ অনুষ্ঠিত ডিএসইর পর্ষদ সভায় ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে। এই সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা বা শোকজ করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। কেন কোন ধরণের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, সেই জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করছে পরিচালনা পর্ষদ। কোন ধরণের শোকজ না করে সরাসরি চার কর্মকর্তাকে সাসপেন্ড করলো ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো সাইফুর রহমান মজুমদার।

এই বিষয়ে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেনি। তবে এই বিষয়ে ডিএসইর একাধিক কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হয়েছে। কোন কর্মকর্তা এই বিষয়ে সরাসরি কথা বলতে রাজি হয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কর্মকর্তা বিডিক্যাপকে বলেন, পর্ষদ সভায় ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালককে দায়িত্ব অবহেলা করা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তিনি কোন ধরণের শোকজ না করে সরাসরি সাসপেন্ড করে দিয়েছেন।

সাসপেন্ড হওয়া চার কর্মকর্তা হলেন মার্কেট অপারেশন বিভাগের প্রধানের দায়িত্ব থাকা এজিএম মোহাম্মদ রনি ইসলাম। একই বিভাগের কামরুজ্জামান,হুমায়ুন কবির ও রাকিবুর রহমানকে।

এজিএম মোহাম্মদ রনি ইসলামের পরিবর্তে এই বিভাগের প্রধান করা হয়েছে এজিএম মো: জলিলুর রহমানকে। নতুনকরে এ বিভাগে আরও সংযুক্ত করা হয়েছে প্রোডাক্ট ম্যানেজম্যান্ট বিভাগে দায়িত্ব পালন করা ফয়সাল আব্দুল্লাহকে, সিএসডি বিভাগের সাজ্জাদ হোসাইনকে এবং ইন্টার্নাল অডিটের ইয়াসিন মিন্টু। এছাড়া, এইচআর বিভাগের মাহমুদা আক্তারকে বদলি করা হয়েছে ইন্টার্নাল অডিট বিভাগে।

এনজে

পাঠকের মতামত: