ঢাকা,শুক্রবার, ১৭ মে ২০২৪

সেপ্টেম্বরে বেড়েছে এফএওর শস্য মূল্যসূচক

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) জানিয়েছে, চলতি বছরের আগস্টের চেয়ে সেপ্টেম্বরে খাদ্যশস্য মূল্যসূচক (সিপিআই) বেড়েছে। তবে বছরওয়ারি হিসাবে দাম নিম্নমুখী দেখিয়েছে সংস্থাটি। এ-সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরের চেয়ে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে মূল্যসূচক ১৪ দশমিক ৬ শতাংশ কম রয়েছে। খবর ওয়ার্ল্ড গ্রেইন ডটকম।

এফএওর অধীনে সিপিআই হিসেবে মূলত মাসভিত্তিক মূল্য পরিবর্তনের তথ্য সংরক্ষণ ও বিশ্লেষণ করা হয়। সূচকটির সর্বশেষ রিপোর্টে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারদরে আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বরে গড় মূল্যে সিপিআই বেড়েছে ১ দশমিক ৩ পয়েন্ট। গত মাসে সূচক উঠেছে ১২৬ দশমিক ৩ পয়েন্টে। তবে তা আগের বছরের সেপ্টেম্বরের সিপিআই থেকে ২১ দশমিক ৬ পয়েন্ট কম।

আন্তর্জাতিক বাজারে দানাদার শস্যের দাম বাড়ার প্রভাব পড়েছে গোটা খাদ্যবাজারে। দানাদার শস্যের দাম বেড়েছে ৫ দশমিক ৩ শতাংশ। এদিকে সেপ্টেম্বরে ভুট্টার বাজারও বেশ চড়া গেছে। আর্জেন্টিনায় কৃষকরা শস্যটির বিক্রি কমিয়ে দেয়। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রে মিসিসিপি নদীর পানির স্তর কমে যাওয়ায় জাহাজে খাদ্যশস্যটির পরিবহন নিয়ে জটিলতা দেখা দেয়। পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়ায় দামেও প্রভাব পড়ে। এসব কারণে ব্রাজিলিয়ান ভুট্টার চাহিদা বেড়ে যায়। তথ্যমতে, গত মাসে শস্যটির দাম ৭ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে গেছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে গমের দাম কিছুটা কমেছে। ব্যাপক উৎপাদন বাড়ায় সেপ্টেম্বরে রাশিয়ান গমের সরবরাহ বেড়েছে বাজারে। মাসভিত্তিক হিসাবে আগস্টের চেয়ে খাদ্যশস্যটির দাম কমেছে ১ দশমিক ৬ শতাংশ।

এফএওর সব ধরনের চালের মূল্যসূচকও কিছুটা কমেছে। সেপ্টেম্বরে মাসিক দশমিক ৫ শতাংশ দরপতন ঘটেছে। তবে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় দাম বেড়েছে ২৭ দশমিক ৮ শতাংশ।

এদিকে সেপ্টেম্বরে এফএওর উদ্ভিজ্জ তেলের মূল্য সূচকও কমেছে। গড় সূচক ছিল ১২০ দশমিক ৯ পয়েন্ট। আগস্টের তুলনায় দাম কমেছে ৩ দশমিক ৯ শতাংশ বা ৫ পয়েন্ট। এ নিয়ে টানা দুই মাস ধরে পণ্যটির সূচক নিম্নমুখী গেল। সূচক নেমে যাওয়ার কারণ ছিল আন্তর্জাতিক বাজারে পাম বীজ, সূর্যমুখী বীজ, সয়া এবং সরিষা বীজের দাম কমে যাওয়া। সেপ্টেম্বরে পাম অয়েলের দামও কমতে শুরু করেছে।

সেপ্টেম্বরে এফএওর সামগ্রিক খাদ্য মূল্যসূচক ছিল ১২১ দশমিক ৫ পয়েন্ট, যা আগস্টের মূল্যসূচক থেকে প্রায় অপরিবর্তিত। এক বছর আগের চেয়ে সূচক ১৪ দশমিক ৬ পয়েন্ট বা ১০ দশমিক ৭ শতাংশ কমেছে। আর ২০২২ সালের মার্চের সর্বকালের সর্বোচ্চ স্তর থেকে ৩৮ দশমিক ৩ পয়েন্ট কম রয়েছে।

এনজে

পাঠকের মতামত: