ঢাকা,মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

ফিউচার মার্কেটে বাড়তির দিকে জাপানি রাবারের দাম

চলতি সপ্তাহে ফিউচার মার্কেটে দাম বেড়েছে জাপানি রাবারের। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের বেকারত্ব তথ্য প্রকাশ হওয়ার পর আন্তর্জাতিক বাজারে সামান্য বেড়েছে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম। এতে ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে রাবারের বাজারে। তবে পণ্যটির মাসিক মূল্যহার এখনো নিম্নমুখীই। খবর বিজনেস রেকর্ডার।

ওসাকা এক্সচেঞ্জে চলতি সপ্তাহে মার্চে সরবরাহ চুক্তিতে প্রাকৃতিক রাবারের দাম ১ দশমিক ৩ ইয়েন বা দশমিক ৬ শতাংশ বেড়েছে। প্রতি কেজির মূল্য স্থির হয়েছে ২৩১ ইয়েন বা ১ ডলার ৫৫ সেন্টে। তবে বাজার আদর্শটির মাসিক দাম কমেছে ১ দশমিক ৮ শতাংশ। এর আগে টানা দুই মাস ঊর্ধ্বমুখী ছিল বাজার আদর্শটির দাম।

সিন্থেটিক রাবার তৈরিতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল ব্যবহার হয়। ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে প্রাকৃতিক রাবারের বাজারও ঊর্ধ্বমুখী হয়ে ওঠে। এদিকে রাশিয়া ও সৌদি আরবসহ অন্যান্য জ্বালানি তেল উত্তোলনকারী দেশগুলো সরবরাহ কমিয়ে দেয়ায় বাজারে সংকট দেখা দিয়েছে। চাহিদার বিপরীতে সরবরাহ কমে যাওয়ায় চড়া যাচ্ছে জ্বালানিটির বাজারদর।

অন্যদিকে, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সুদহার বাড়িয়েছিল বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভসহ শীর্ষস্থানীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো গত মাসেও উচ্চ সুদহার অনির্দিষ্টকাল অপরিবর্তিত রাখার কথা জানায়। এ খবরে মার্কিন ট্রেজারি বন্ডের দিকে ঝোঁকেন বিনিয়োগকারীরা। ডলারের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ভিন্ন মুদ্রার গ্রাহকের আমদানি খরচও বেড়ে গেছে। খরচ কমাতে ক্রয় সীমিত করায় চাহিদা কমে যায় রাবারের। ফলে সেপ্টেম্বরে মাসিক দাম কমে যায় পণ্যটির।

এদিকে আইভরি কোস্টের প্রাকৃতিক রাবার অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, চলতি বছর দেশটিতে রাবার উৎপাদন রেকর্ড ১৫ লাখ টনে পৌঁছতে পারে। ২০২২ সালের চেয়ে উৎপাদন বাড়বে দুই লাখ টান। সে সময় ১৩ লাখ টন উৎপাদনের কথা জানিয়েছিল অ্যাসোসিয়েশন।

এনজে

পাঠকের মতামত: