ঢাকা,রোববার, ১৯ মে ২০২৪

এলএমইতে নিম্নমুখী তামার দাম

বৈশ্বিক বাজারে কমেছে তামার ‍দাম। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক উচ্চ সুদহার অপরিবর্তিত রাখার ইঙ্গিতে গতকাল লন্ডন মেটাল এক্সচেঞ্জে (এলএমই) দরপতন ঘটে শিল্প ধাতুটির। এছাড়া লম্বা সরকারি ছুটির আগে চীনা আমদানিকারকরা ক্রয় কমিয়ে দেয়ায় চাহিদা কমে গেছে পণ্যটির। খবর রয়টার্স।

লন্ডন মেটাল এক্সচেঞ্জে (এলএমই) সোমবার তিন মাস সরবরাহ চুক্তিতে তামার দাম দশমিক ৩ শতাংশ কমে গেছে। প্রতি টনের মূল্য স্থির হয়েছে ৮ হাজার ১৯৮ ডলারে। ১ আগস্টের পর দৈনিক ভিত্তিতে ধাতুটির সর্বোচ্চ দরপতন ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার। এলএমইতে সেদিন ১ দশমিক ৮ শতাংশ দরপতন ঘটে। অন্যদিকে, সাংহাই ফিউচার এক্সচেঞ্জে (এসএইচএফই) গতকাল নভেম্বরে সরবরাহ চুক্তিতে টনপ্রতি দাম স্থির ছিল ৬৭ হাজার ৭৯০ ইউয়ানে বা ৯ হাজার ২৮২ ডলার ১১ সেন্ট।

মূল্যস্ফীতি কমাতে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকসহ বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির দেশগুলোর কেন্দ্রীয় ব্যাংক আরোপিত উচ্চ সুদহার অপরিবর্তিত রাখার নীতি নিয়েছে। উচ্চ সুদহার বহাল থাকলে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ব্যাহত হয়। পাশাপাশি তামাসহ অন্যান্য ধাতুর চাহিদা কমিয়ে দেয়। সুদহারে কোনো পরিবর্তনের সম্ভাবনা না থাকায় ডলারের মূল্য সূচক ১০ সপ্তাহ ধরে বেড়েই চলেছে। এতে ডলারে লেনদেন হওয়া ধাতুটি অন্যান্য মুদ্রার ক্রেতার কাছে আকর্ষণ হারিয়েছে। ডলার শক্তিশালী হওয়ায় ভিন্ন মুদ্রার গ্রাহকদের খরচ বেড়ে গেছে। ফলে ধাতুটির ক্রয় কমিয়েছেন তারা।

এদিকে শুক্রবার এলএমইতে অ্যালুমিনিয়ামের দাম কমেছে দশমিক ৬ শতাংশ। প্রতি টনের মূল্য দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ২২৭ ডলার ৫০ সেন্টে। নিকেল দশমিক ৩ শতাংশ কমে টনপ্রতি ১৯ হাজার ৩৭০ ডলার হয়েছে। বৃহস্পতিবার ধাতুটির দাম নেমেছিল ১৯ হাজার ১০০ ডলারে, যা ছিল ২০২২ সালের জুলাইয়ের পর সর্বনিম্ন।

আর দস্তার দাম ১ দশমিক ৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৫২৯ ডলার ৫০ সেন্টে। সিসার দাম কমেছে দশমিক ৫ শতাংশ। প্রতি টন লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ২০৩ ডলার ৫০ সেন্টে। তবে টিনের দাম দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে টনপ্রতি মূল্য দাঁড়িয়েছে ২৬ হাজার ৩৩০ ডলারে।

অন্যদিকে, এসএইচএফইতে গতকাল অ্যালুমিনিয়ামের দাম প্রতি টনে দশমিক ১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৩১৫ ইউয়ান। দস্তার দাম টনে দশমিক ১ শতাংশ কমে হয়েছে ২১ হাজার ৬০৫ ইউয়ান। এ সময় নিকেলের দাম দশমিক ৭ শতাংশ বেড়ে টনপ্রতি হয়েছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৯৮০ ইউয়ান, সিসার দাম দশমিক ৪ শতাংশ বেড়ে প্রতি টনে দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৮৭০ ইউয়ান এবং টিনের দাম ২ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে। টনপ্রতি ধাতুটির দাম উঠেছে ২ লাখ ২২ হাজার ৭০০ ইউয়ান।

এনজে

পাঠকের মতামত: