ঢাকা,শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

বাজেটে কালোটাকা বিনিয়োগের সুযোগ রাখার প্রস্তাব সিএসই’র

নির্দিষ্ট হারে কর দেওয়া সাপেক্ষে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করা অর্থের উৎস সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন না তোলার বিধান ফের চালু করার প্রস্তাব দিয়েছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)।

রোববার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর আড়াইটায় আগারগাঁওয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলনকক্ষে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রাক বাজেট আলোচনায় সিএসই মোট ১১টি প্রস্তাব তুলে ধরে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সভাপতিত্বে সভায় সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সিএসই’র প্রস্তাবসমূহের মধ্যে রয়েছে, কোম্পানি শেয়ারের লভ্যাংশ থেকে উৎসে কর কর্তনের বিধান বাতিল করা, ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের করমুক্ত লভ্যাংশ ১ লাখ টাকা নির্ধারণ করা, জিরো কুপন বন্ডের অন্য বন্ডের আয়কে কর অব্যাহতি প্রদান করা ও ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের করমুক্ত আয়ের সীমা ৩ লাখ থেকে ৪ লাখ টাকায় উন্নীত করার প্রস্তাব করেছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ। এছাড়া নির্দিষ্ট হারে কর প্রদান সাপেক্ষে পুজিবাজারে বিনিয়োগ করা অর্থের উৎস সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন না তোলার বিধানটি ফের চালু করার প্রস্তাব দিয়েছেন তারা।

সরকার ২০২১ সালে পুঁজিবাজারে এক বছর বিনিয়োগ রাখার শর্তে কালোটাকা সাদা করার সুযোগ অব্যাহত রেখেছিল। একই সঙ্গে এই নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছিল, যারা অপ্রদর্শিত আয়ের টাকা বৈধ করে নেবে, তাদের কাছে অর্থেক উৎস সম্পর্কে কোনো কর্তৃপক্ষই জানতে চাইবে না। তবে গত বাজেটে পুঁজিবাজারে অপ্রদর্শিত আয়ের টাকা কর দিয়ে সাদা করার সুযোগও বাতিল করা হয়।

এসময় আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেন, আমরা উন্নয়নশীল দেশ থেকে মধ্যম ও উন্নত দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। সেক্ষেত্রে রাজস্ব আহরণের কোনো বিকল্প নেই। অনেককিছুই সেক্রিফাইস করার মানসিকতা থাকা দরকার। সবার প্রস্তাব আমরা পেয়েছি। আপনাদের প্রস্তাব বিবেচনা করা হবে।

পাঠকের মতামত: