ঢাকা,রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪

বছরের শেষ নাগাদ ঘুরে দাঁড়াবে অর্থনীতি:সালমান এফ রহমান

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ২০২২ সালের শেষ নাগাদ স্থিতিশীল হয়ে আসবে।

সোমবার (২৫ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) সেলিব্রেটি হলে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি), ব্লুমবার্গ এল.পি এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে ‘জাতীয় ব্র্যান্ডিং: বিশ্বব্যাপী নতুন প্রতিভা এবং বিনিয়োগের আকর্ষণ’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

সালমান এফ রহমান বলেন, ‘এরকম অস্থিতিশীল অর্থনৈতিক অবস্থা আমাদের আর বেশিদিন দেখতে হবে না। বছরের শেষ নাগাদ কমে আসবে জ্বালানি তেলের দাম৷ সেই সঙ্গে জ্বালানি তেলের দাম কমার পাশাপাশি নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দামও হ্রাস পাবে।’

সালমান এফ রহমান বলেন, ‘এ বছরের শেষ নাগাদ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি স্থিতিশীল হয়ে আসবে। এমন অস্থিতিশীল অর্থনৈতিক অবস্থা আমাদের আর বেশিদিন দেখতে হবে না। আর বছরের শেষ নাগাদ জ্বালানি তেলের দাম কমে আসবে৷ সেই সঙ্গে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামও হ্রাস পাবে।’

তিনি বলেন, ‘আমি শুধু একটি বিষয় তুলে ধরতে চাই যে, অবিশ্বাস্য বা যাই বলুন না কেন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন আমাদের বড় অর্জন। কারণ যখন বিশ্ব ব্যাংক প্রকল্প বন্ধ করে দেয়, তখন প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হবে নিজস্ব তহবিল দিয়ে। অনেকে এ বিষয়টা নিয়ে সংশয় ছিল। অনেক গুরুত্বপূর্ণ লোকজন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেছিল, পদ্মা সেতু নির্মাণ করা সম্ভব হবে না। যখন আমরা পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ শুরু করি, তখন অনেকেই বলেছিল, সেতুটি ভেঙে যাবে। কিন্তু আমারা পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছি। আর প্রধানমন্ত্রী এই সেতু উদ্বোধন করেছেন। এ সেতু আমাদের জন্য গেম চেঞ্জার হতে যাচ্ছে। এটা বাংলাদেশের সাফল্যের গল্পগুলোর মধ্যে একটি। আর গত ১৪ বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ নিজেকে বদলে ফেলেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ সেমিনারে তথ্যবহুল উপস্থাপন করার জন্য ব্লুবার্গকে ধন্যবাদ জানাই। তথ্য উপস্থাপনায় ইন্দোনেশিয়া ও সিঙ্গাপুরের ব্র্যান্ডিং নিয়ে যে তথ্য তুলে ধরা হয়েছে তা থেকে বাংলাদেশ অনেক কিছু জানতে পারছে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা উপস্থাপন করার জন্য প্যানেল আলোচক এবং মডারেটরকে ধন্যবাদ জানাই।’

সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। এছাড়া সরকারি ও নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং বাংলাদেশের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরাও উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মতামত: